Posts

জেনে নিন সরিষার তেল ব্যবহারে উপকারিতা

সরিষার তেল

বর্তমান সময়ে সয়াবিন তেল বাজারে আসার পর আমরা সরিষার তেলের উপকারিতার কথা প্রায় ভুলেই গেছি। বলা বাহুল্য এক সময় সরিষার তেলই ছিল আমাদের রান্নার একমাত্র উপকরণ। এখনও সরিষা বা সরিষার তেল প্রতিটি বাড়িতে ভর্তা বানাতে, রান্নায় এবং শরীরে মালিশের জন্য ব্যবহার হয়। আমাদের দেশ সহ উপমহাদেশে এই তেলের ব্যবহার অতি প্রাচীন। ৩০০০ খৃষ্টপূর্ব আগে থেকে চিকিৎসা শাস্ত্রে সরিষার তেল ব্যবহার হয়ে আসছে। সরিষা দানা পিষে সরিষার তেল তৈরি করা হয়। এর রঙ ঘন লালচে হলুদ এবং এর গন্ধ ঝাঁঝালো।
সরিষার তেল দুটি পদ্ধতিতে তৈরি হয়। একটি হলো কাচ্চি ঘানি (Cold pressed) এই প্রক্রিয়ায় সরিষার দানা সরাসরি পিষে তেল বের করা হয় এই তেল হয় খুব ঘন এবং ঝাঁঝযুক্ত। এই তেল সবচেয়ে বেশী স্বাস্থ্য উপকারী। এটা হজম শক্তি বাড়ায়, হৃদপিন্ড ভাল রাখে, চুল গজানোয় সাহায্য করে এবং শরীরের মাংশ শক্ত হয়ে যাওয়া (muscle stiffness) রোধ করে।
আরেকটি প্রক্রিয়া হলো এসেনশিয়াল অয়েল (Mustard Essential oil)। এই পদ্ধতিতে তৈরি সরিষার দানার সাথে পানি, ভিনেগার অথবা অন্যান্য তরল মিশিয়ে বানানো হয়। এতে তেল অনেক পাতলা হয়। সরিষার দানায় সিনিগ্রিন (Sinigrin) এবং মাইরোসিনেইস (Myrosinase) নামে দু’টি উপাদান আছে। পানিতে ভিজিয়ে রাখলে এই দু’টি উপাদান বিষাক্ত কম্পাউন্ড সৃষ্টি করে। তাই এই ধরণের তেল খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। তাই খাঁটি কাচ্চি ঘানি (Cold pressed) প্রক্রিয়ায় তৈরি সরিষার তেল বেছে নেওয়া বাঞ্ছনীয়।

সরিষার তেলের গুণাগুণ:

হজম প্রক্রিয়া:
সরিষার তেল মেটাবলিক রেট বৃদ্ধি করে এবং হজম প্রক্রিয়ায় সহায়তা করে।

ব্যথা কমাতে সরিষার তেল:
সরিষার তেলে থাকে প্রদাহ বিরোধী (Anti-inflammatory) উপাদান যা ব্যথা কমাতে সাহায্য করে। হাঁটুর ব্যথা, অন্যান্য জয়েন্টের ব্যথা, আর্থ্রাইটিস (বাত) এবং রিউম্যাটিক এর ব্যথাও দূর করে।

রোগের উপশমে সরিষার তেল:
মনোস্যাচুরেটেড ও পলিস্যাচুরেটেড ফ্যাটে সমৃদ্ধ সরিষার তেল কোলেস্টেরলের ভারসাম্য রক্ষা করে। এতে কার্ডিওভাস্কুলার রোগের ঝুঁকি অনেকটা কমে। এই তেলে থাকা গ্লুকোসিনোলেট (Glucosinolate) নামক উপাদান অন্ত্রের ক্যান্সার এবং মলাশয় ক্যান্সার রোধে সাহায্য করে। শিশুদের জন্য এই তেল বেশ উপকারী। এজমা এটাক (Asthma attack) হলে সরিষার তেল বুকে ঘষলে শ্বাস নেয়ার ক্ষমতা বেড়ে যায়। সবসময় এর ব্যবহার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে।

পোকামাকড় এবং মশা তাড়াতে:
পোকামাকড় এবং মশা তাড়াতে ঔষধ হিসাবে সরিষার তেল ব্যবহৃত হয়ে থাকে। এর গন্ধে পোকামাকড় কাছে আসে না।

ঠোঁটের যত্নে সরিষার তেল:
ঠোঁটের শুষ্কতা ও ফাটা ভাব দূর করতে কার্যকর প্রতিকার হলো সরিষার তেল। ঘুমাতে যাওয়ার আগে নাভিতে এক বা দুই ফোঁটা সরিষার তেল লাগালে ঠোঁটের শুষ্কতা ও ফাটা ভাব দূর হয়।

চুলে সরিষার তেল ব্যবহারের উপকারিতা:

খাঁটি সরিষার তেল এর আলফা ফ্যাটি অ্যাসিড চুল সুন্দর ও স্বাস্থ্য উজ্জ্বল রাখে। এ ছাড়া আলফা ফ্যাটি অ্যাসিড কন্ডিশনার হিসেবে দারুন কাজ করে। ফলে চুল দ্রুত বাড়ে। ভিটামিন, মিনারেল ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ সরিষার তেলে রয়েছে আয়রন, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ম্যাগনেসিয়াম মিনারেল, ক্যালসিয়াম এবং ভিটামিন এ ডি ই ও কে। এ ছাড়া থাকে জিংক, সেলেনিয়াম ও বিটা ক্যারোটিন, যা চুল লম্বা হতে সাহায্য করে। চুল রুক্ষ, শুষ্ক, নিষ্প্রাণ হয়ে গেলে নিয়মিত মাথার তালুতে সরিষার তেল মালিশ করুন এতে আপনার মাথায় রক্তসঞ্চালন বৃদ্ধি পাবে। রক্ত সঞ্চালন ঠিকভাবে হলে চুলের গোড়া শক্ত হয়ে চুল পড়া বন্ধ হবে। এ ছাড়া সরিষার তেল চুল বড়, সুন্দর, মজবুত ও স্বাস্থ্য উজ্জ্বল করতে অত্যন্ত কার্যকরী।

সরিষার তেল ওজন কমায়:
নায়াসিন (Niacin) ও রিবোফ্ল্যাভিন (Riboflavin) সমৃদ্ধ সরিষার তেল শরীরে মেটাবলিজম বাড়িয়ে ওজন কমাতে সহায়তা করে।

সতর্কতা:
সরিষার তেল ব্যবহারের আগে অবশ্যই নিশ্চিত হবেন যে আপনার সরিষার তেল খাঁটি কি না? যেকোনো সরিষার তেল আমাদের জন্য উপকারি কি? মোটেও তা নয়। ভেজাল বা নকল সরিষার তেল ব্যবহারের ফলে ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। নিশ্চয়ই আপনি জানেন স্বাস্থ্যসুরক্ষায় সরিষার তেল কতটা কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে। । তাই খাঁটি সরিষার তেল কেনার ক্ষেত্রে সাবধান হতে হবে।
বাজারে পাওয়া তেলের মধ্যে সরিষার তেল সব থেকে বেশী স্বাস্থ্যকর ও পুষ্টিকর। তবে এটা হতে হবে অবশ্যই খাঁটি ঘানি ভাঙ্গা সরিষার তেল বা কোল্ড প্রেসড (cold pressed)। আপনি যদি খাঁটি ঘানি ভাঙ্গা সরিষার তেল নিতে চান তবে এখান থেকে অনলাইনে অর্ডার করে কিনে নিতে পারেন। ইদানিং অনেকেই সয়াবিন তেলের পরিবর্তে খাঁটি ঘানি ভাঙ্গা সরিষার তেল ব্যবহার করেছেন। অর্গানিক খাঁটি ঘানি ভাঙ্গা সরিষার তেল।
এই তেল যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা এবং ইউরোপে ব্যবহার নিষিদ্ধ কারণ সরিষার তেলে থাকে ইরিউসিক এসিড (erucic acid)। তবে এটা বাহ্যিক ব্যবহার যেমন মালিশের জন্য এসব দেশে নিষিদ্ধ নয়।

ইয়াম্মী বাই ড্রেস-আপ এর অন্যান্য পণ্য গুলাঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *