Posts

Cleansing Milk প্রতিদিন ত্বকের যত্নে

Cleansing Milk কি আমরা অনেকেই জানিনা। আমরা কমবেশি সবাই ত্বক পরিষ্কার করতে ফেসওয়াশ ব্যবহার করি। কিন্তু আমরা কি জানি ফেসওয়াশ বারবার ব্যবহার এ ত্বকের কি ক্ষতি হয়? আসুন জেনেনেই কেন Cleansing Milk কিভাবে ব্যবহার করবো এবং ফেসওয়াশ কত বার ব্যবহার করবো-

১। সকালে আমাদের ত্বক সর্বাধিক কোমল এবং নাজুক থাকে। কিন্তু সকালে ঘুম থেকে উঠেই ত্বক পরিষ্কার না করলেই নয়। সকালে ত্বক পরিষ্কার করতে যদি ফেসওয়াশ ব্যবহার করা হয় তাহলে ত্বক দিন দিন বুড়িয়ে যেতে শুরু করে, ত্বকে লাবণ্য কমতে থাকে। ত্বকের সেলফ ডিফেন্স কার্যক্ষমতা হারিয়ে যেতে থাকে। আবার এই সময় ত্বক নাজুক থাকায় ত্বক এ ফেসওয়াশ ব্যবহার করলে ত্বক দিন দিন সেনসিটিভ হয়ে যেতে শুরু করে।
তাই, সকালে ত্বক পরিষ্কারে Cleansing Milk ব্যবহার করলে ত্বকের এসব সমস্যা হয়না।
২। ফেসওয়াশ এর ফর্মুলা ত্বকের Deepest এ অনেক সময় পৌঁছাতে পারেনা। যার ফলে ত্বকের অভ্যন্তরে ময়লা থেকে যায়।
এক্ষেত্রে, Cleansing Milk ব্যবহার এ ভালোভাবে ত্বকের গভীরে পরিষ্কার হয়।
৩। মেকআপ বা সানস্ক্রিন ত্বকে বেশিক্ষন থাকলে ত্বক ড্যামেজ হওয়ার আশংকা থাকে। ফেসওয়াশ ব্যবহার করলে ৮০% সময় ই মেকআপ বা সানস্ক্রিন পুরোপুরি উঠিয়ে ফেল সম্ভব হয়না। কিন্তু, Cleansing Milk ত্বকে হালকা হাতে ২/৩ মিনিট ম্যাসাজ করলে এ সকল ন্যানো পার্টিকেল ত্বক থেকে সুন্দর ভাবে উঠে আসে।
৪। Cleansing Milk ব্যবহার এ ত্বক অনেক লম্বা সময় ধরে Moisturised থাকে। যেটা ফেসওয়াশ ব্যাবহার এ অনেকটা ড্রাই হয়ে যায়।
৫। অনেক Cleansing Milk এ প্রয়োজনীয় ভিটামিন আছে যা ত্বক এর Dammage রিপেয়ার এ সাহায্য করে।
আবার শুধুমাত্র Cleansing Milk ব্যবহার করলেই হয়না, ফেসওয়াশ দিনে অন্তত একবার ব্যবহার করতে হয়। ফেসওয়াশ এর পাশাপাশি Cleansing Milk ব্যবহারে ত্বকের মসৃণতা বজায় থাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *