Posts

ফ্রিজে খাবার রাখার চমৎকার কিছু পদ্ধতি

বার বার রান্না করা বা বাজার করার ঝামেলা থেকে বাঁচার জন্য আমরা প্রায় ই খাবার বেশি করে রান্না করে থাকি যা আমরা পরে অন্য কোনো বেলায় খাওয়ার জন্য সংগ্রহ করি। বেশি করে শাকসবজি, মাছ-মাংস, ডিম এমনকি বাটা মশলা আমরা ফ্রিজে সংগ্রহ করি।.
কিন্তু, ফ্রিজে রাখা খাবার কিছুদিন পর খেতে গেলে এর স্বাদ নষ্ট হয়ে যায়। যা আর পরবর্তীতে খেতে ভালো লাগেনা। কাঁচা খাবার বা ফলমূলের ক্ষেত্রে স্বাদ এর সাথে সাথে ন্যাচারাল ফুড গুনাগুন নষ্ট হয়ে যায়।

এত কিছু জানা সত্ত্বেও আমরা ফ্রিজ ব্যবহার ছাড়তে পারিনা। কারণ খাবার বাইরের তাপমাত্রায় নষ্ট হয়ে যায়। তবে সঠিক কিছু পদ্ধতি অবলম্বন করলে এসব সমস্যা থেকে নিস্তার পাওয়া সম্ভব।

আসুন জেনে নেই খাবার ভালো রাখার কিছু চমৎকার পদ্ধতি যা আমরা আগে জানতাম না –

১। ফ্রিজে রাখা খাবার আমরা অনেকেই খোলা রেখে দেই, কিন্তু এটি করলে সবগুলো খাবার এর গন্ধ মিশে গিয়ে অন্যান্য খাবার এর স্বাদ ভালো লাগেনা।
তাই, রান্না করা খাবার রাখলে অবশ্যই ঢাকনা দিয়ে রাখতে হয়, সবচেয়ে ভালো হয় যদি Air-Tight বক্সে রাখা যায়।

২। শাকসবজি ও ফলমূল ধুয়ে স্বাভাবিক তাপমাত্রায় শুকিয়ে নিয়ে তারপর পলিব্যাগ এ খুব সুন্দরমতো মুড়িয়ে রাখতে হবে যাতে ফ্রিজ এর বাতাস সরাসরি না লাগে। এটি করলে স্বাদ যেমন ভালো থাকবে তেমনি এর পুষ্টিগুণ, চেহারা নষ্ট হবে না।

৩। কাঁচা মাছ-মাংস, ফ্রিজ ভালো রাখার জন্য প্রয়োজনীয় ড্রেসিং করে নেয়া সবচেয়ে ভালো পদ্ধতি। ড্রেসিং এর মাধ্যমে রক্ত, মল, আলাদা ময়লা ফেলে দিয়ে পলিথিন মুড়িয়ে রাখলে তার স্বাদ, গন্ধ নষ্ট হয়না।

৪। মৌসুমী ফল গুলাকে সংরক্ষণ করতে চাইলে অত্যন্ত চমৎকার কিন্তু অতি সাধারণ একটি পন্থা আছে। লিচু, আম বা এধরণের টক-মিষ্টি জাতীয় ফল আইস-ক্রিম এর বাটিতে চিনির শিরায় ভিজিয়ে ডিপফ্রিজে বরফ করে নিতে হবে। এরপর যখন সাধারণ বাজারে এসব ফল যখন আমদানি বন্ধ হয়ে যাবে তখন ফ্রিজ থেকে বের করে বরফের টুকরোটা ব্লেন্ডার এর মধ্যে ঠান্ডা পানির সাথে দিয়ে জুস বানিয়ে খাওয়া যায়। যা অতি উপাদায়েও হয়।

৫। গৃহিণীরা অনেক দিনের বা কয়েক বেলার জন্য বাইরে গেলে ঘরের বাকিদের জন্য এক্সট্রা খাবার রান্না করে রেখে যায়। কিন্তু আপনি কি জানেন ! এই খাবার গুলো একটি বিশেষ পদ্ধতি অবলম্বন করে সংগ্রহ করলে দীর্ঘদিন পর্যন্ত এই খাবার ভালো থাকবে। রান্না করা খাবার প্রতি বেলার জন্য আলাদা আলাদা Air-Tight বক্সে রাখতে হবে যেন তা একেবারেই খেয়ে ফেলা যায়। বক্সটি মোটা করে পলিব্যাগ পেঁচিয়ে নিতে হবে। এরপর খাবার বের করে চুলায় বা ওভেন এ দেয়ার আগে রুম টেম্পারেচার এ বরফ ছাড়ার সময় দিতে হবে। আর প্রতিটি খাবার Store করার আগে রান্না সম্পূর্ণ শেষ হওয়ার ৫ থেকে ৭ মিনিট আগে নামিয়ে নিতে হবে। আর অসম্পূর্ণ এই রান্নাটি গরম করার সময় ৫ থেকে ৭ মিনিট চুলায় রেখে নিলেই সম্পূর্ণ হবে।

৬। ভর্তা সংরক্ষণের জন্য তাতে কাঁচা পেঁয়াজ, মরিচ, রসুন পরিহার করতে হবে।

৭। মাছ-মাংস চাইলে হলুদ লবন দিয়ে মেখে Marinate করে হালকা ভেজে রেখে দিলে ১ সপ্তাহ ভালো থাকে। তবে সংরক্ষণ বাক্স অবশ্যই Air-Tight হতে হবে।

ইয়াম্মী বাই ড্রেস-আপ এর পণ্য গুলাঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *